Text size A A A
Color C C C C
পাতা

প্রকল্প

গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পসমূহ

১. বিশেষ গ্রামীণ পানি সরবরাহ প্রকল্পঃ বিশেষ গ্রামীণ পানি সরবরাহ প্রকল্পের আওতায় ২০১২-২০১৩অর্থবছর পর্যমত্ম ১০২৪টি আর্সেনিক নিরাপদ বিভিন্ন ধরনের পানির উৎস স্থাপন করা হয়েছে। ২০১৩-২০১৪অর্থবছরে আরও ৩৫৫টিআর্সেনিক নিরাপদ পানির উৎস স্থাপন কাজ চলমান আছে।

 

২. জিওবি-ইউনিসেফ প্রকল্পঃ ক) জিওবি-ইউনিসেফ প্রকল্পের আওতায় ২০১২-২০১৩অর্থবছর পর্যন্ত ৮৪৫টিবিভিন্ন ধরনের আর্সেনিক নিরাপদ পানির উৎস স্থাপন করা হয়েছে|

 

খ) জিওবি-ইউনিসেফ প্রকল্পের আওতায় চাটমোহর, বেড়া, সুজানগর, সাঁথিয়া ও পাবনা সদর উপজেলায় ২১০টিসরকারী/রেজিষ্ট্রার্ড প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নতুন ওয়াটসান সুবিধাদি নির্মাণ এবং ৩৯৮টিসরকারী/রেজিষ্টার্ড প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ওয়াটসান সুবিধাদি মেরামত করা হয়েছে।

 

গ) জিওবি-ইউনিসেফ প্রকল্পের আওতায় সুজানগর উপজেলার আহম্মদপুর ইউনিয়নের খাঁ-পাড়া গ্রামে মিনি পাইপড ওয়াটার সাপ্লাই সিষ্টেম নির্মাণ কাজে ১টি পরীক্ষামূলক নলকূপ, ১টি উৎপাদক নলকূপ, ১টি পাম্প হাউজ, ৪.০০ কিঃমিঃ পাইপলাইন, ১টি স্লোস্যান্ড ফিল্টার ও ১টি উচ্চজলাধার নির্মাণ করে আর্সেনিক নিরাপদ পানি সরবরাহ ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে। জনগন আর্সেনিক নিরাপদ পানি পাচ্ছে।

 

ঘ) জিওবি-ইউনিসেফ প্রকল্পের আওতায় সাঁথিয়া উপজেলার ক্ষেতুপাড়া ইউনিয়নের খালুইভরা গ্রামে ১টি উৎপাদক নলকূপ স্থাপন, ৩.২৭৬ কিঃ মিঃ বিভিন্ন ব্যাসের পাইপলাইন স্থাপন, ১টি উচ্চ জলাধার, বাউন্ডারী ওয়াল নির্মান  ও ২২০টি গৃহ সংযোগ নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে যার মাধ্যমে জনগন আর্সেনিক নিরাপদ পানি সরবরাহ পাচ্ছে।

 

জিওবি-ইউনিসেফ প্রকল্পের আওতায় সাঁথিয়া উপজেলার নাগডেমরা ইউনিয়নের নাগডেমরা গ্রামে ১টি উৎপাদক নলকূপ স্থাপন, ৩.২১৩ কিঃ মিঃ বিভিন্ন ব্যাসের পাইপলাইন স্থাপন, ১টি উচ্চ জলাধার, বাউন্ডারী ওয়াল নির্মান ও ২৫৭টি গৃহ সংযোগ নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে যার মাধ্যমে জনগন আর্সেনিক নিরাপদ পানি সরবরাহ পাচ্ছে।

 

এছাড়া বর্ণিত ০৫টি উপজেলায় নিয়োজিত এনজিও জনবল দ্বারা ১৭৫টি উপজেলা ওয়াটসান কমিটির সভা, ১৮৪১টি ইউনিয়ন ওয়াটসান কমিটির সভা, ১৬৫০৩টি ওয়ার্ড ওয়াটসান কমিটির সভা, ৩৩২৮৩৩টি উঠান বৈঠক, ৪৮৮০৪টি স্কুল ভিজিট, ৫৪৫১টি টি স্টল সেশন, ৬২৮১টি ভিডিও শো, ৩৮০৭৯টি হাত ধোওয়ার ডিভাইস স্থাপন, ২৯৯০৪৪টি পরিবারে বর্জ্য ব্যবস্থাপনার জন্য গর্ত তৈরী করা এবং ৪৫০টি স্যানিটেশন বিষয়ক নাটক প্রর্দশন করা হয়েছে।

 

৩. ইউনিয়ন পরিষদ সাপোর্টেড ভিলেজ পাইপড ওয়াটার সাপ্লাই প্রজেক্টঃ ইউনিয়ন পরিষদ সার্পোটেড ভিলেজ পাইপড ওয়াটার সাপ্লাই প্রকল্পের আওতায় সুজানগর উপজেলার দূর্গাপুর গ্রামে ৩টি পরীক্ষামূলক নলকহপ, ৩টি উৎপাদক নলকূপ, ১৪.৫০ কিঃমিঃ বিভিন্ন ব্যাসের পাইপলাইন, ১টি উচ্চজলাধার, ১টি পানি শোধনাগার এবং ৫৪০টি গৃহ সংযোগ কাজ সম্পন্ন করে প্রকল্পটি চালু করা হয়েছে এবং এলাকার জনগণ আর্সেনিক নিরাপদ পানি পাচ্ছে।

 

৪. পাবনা জেলার সুজানগর , ভাঙ্গুড়া ও চাটমোহর পৌরসভায় পাইপ লাইনের মাধ্যমে পানি সরবরাহ ও এনভায়রনমেন্টাল স্যানিটেশন প্রকল্প (IPWSAESP)tপ্রকল্পের আওতায় সুজানগর, ভাঙ্গুড়া ও চাটমোহর পৌরসভায় এযাবৎ ২৪টি পরীক্ষামূলক নলকূপ, ১২টি উৎপাদক নলকূপ, ১২টি পাম্প হাউজ নির্মাণ, ৫৭.০০ কিঃ মিঃ পাইপলাইন ও ৭৫টি তারা নলকূপ স্থাপন কাজ, ৬ টি পাবলিক টয়লেট, ১২.০০ কিঃমিঃ সারফেস ড্রেন নির্মাণ, ১২টি পাম্প স্থাপন, ৬০০টি গৃহসংযোগ, ১২টি অটোভোল্টেজ রেগুলেটর ক্রয় ও স্থাপন এবং ৩০টি ডাস্টবিন নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদানের মাধ্যমে জানুয়ারী/২০১৩ মাসে সুজানগর ভাঙ্গুড়া ও চাটমোহর পৌরসভায় পানি সরবরাহ ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে, জনগন আর্সেনিক নিরাপদ পানি পাচ্ছে এবং চালু অবস্থা্য় পৌরসভার নিকট স্থানান্তর করা হয়েছে।

 

৫. ৩৭ জেলা শহরে পানি সরবরাহ প্রকল্পঃ এই প্রকল্পের আওতায় ২০১২-২০১৩ অর্থবছর পর্যন্ত পাবনা পৌরসভায় ০৫টি পাম্প হাউজ ও ০১টি আয়রন রিমুভ্যাল প্লান্ট মেরামত, ০৯ কি:মি: পাইপলাইন প্রতিস্থাপন ও ০৪টি উৎপাদক নলকূপ পূনঃস্থাপন করা হয়েছে।
 
৬. তৃতীয় প্রাইমারী এডুকেশন ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট-৩ (PEDP-3) : এই প্রকল্পের আওতায় এযাবৎ ২৬১টি সরকারী/রেজিস্টার্ড প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আর্সেনিক নিরাপদ নলকূপ স্থাপন করা হয়েছে। এই প্রকল্পের আওতায় ১৫৫টি সরকারী/রেজিস্টার্ড প্রাথমিক বিদ্যালয়ে WASH Block নির্মাণ করা হয়েছে। এছাড়া আরও ১৬৯ টি সরকারী/রেজিস্টার্ড প্রাথমিক বিদ্যালয়ে WASH Block নির্মাণ কাজ এবং ৩০১টি স্কুলে আর্সেনিক নিরাপদ নলকূপ স্থাপন কাজ চলমান আছে।
 
৭. স্যানিটেশন বিষয়ক :
১। জাতীয় স্যানিটেশন (২য় পর্ব) প্রকল্প :জাতীয় স্যানিটেশন (২য় পর্ব) প্রকল্পের আওতায় তিন রিং এক স্লাব বিশিষ্ট ৫৩৯০ সেট ল্যাট্রিন বিনামূল্যে হত দরিদ্র পরিবারের মাঝে বিতরণ করে এবং দপ্তরীয় জনবল দ্বারা ৫১৯৯ সেট ল্যাট্রিন তৈরী করে স্বল্প মূল্যে বিক্রয় করে কভারেজ বৃদ্ধি করা হয়েছে।
 
২। এযাবৎ পাবনা জেলার ০৯টি উপজেলা ও ০৯টি পৌরসভা অর্থাৎ সমগ্র জেলা ১০০% (শতভাগ) স্যানিটেশন কভারেজ অর্জন করেছে। যা জেলা স্যানিটেশন টাস্কফোর্স কমিটি কর্তৃক ১৮/০৩/২০১৪ খ্রিঃ তারিখে ঘোষণা করা হয়েছে।
 
৮. আর্সেনিক দূষণের অবস্থা ও নিরসন বিষয়ক কার্যক্রমঃ
আর্সেনিক জরীপ সংক্রান্ত প্রতিবেদনঃ ২০০২ সাল হতে ২০০৬ সাল পর্যন্ত স্ক্রিনিংকৃত ৭২৯৯৭টি সরকারী/বেসরকারী নলকূপের মধ্যে ১১৪২৩টি নলকূপে গ্রহণযোগ্য মাত্রার বেশী আর্সেনিক পাওয়া গেছে। জেলার আর্সেনিক দূষণের শতকরা হার ১৫.৮০। অবশিষ্ট নলকূপ স্ক্রিনিং করা প্রয়োজন। আর্সেনিক দূষণ, আর্সেনিকের খারাপদিক, আর্সেনিকোসিস রোগ, আর্সেনিক নিরাপদ পানি ভাগাভাগি করা ইত্যাদি বিষয়ে উদ্বুদ্ধকরণ কাজ চলমান আছে। তাছাড়া সরকারীভাবে বিভিন্ন প্রকার আর্সেনিক নিরাপদ পানির উৎস স্থাপনের মাধ্যমে সুপেয় খাবার পানি সরবরাহ করা হচ্ছে। ফলে আর্সেনিক আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা উল্লেখযোগ্য ভাবে কমেছে।